Wednesday , October 17 2018
Breaking News

আজকের ম্যাচে শেষ ওভারে যে জামেলা হয়েছিল

দুর্দান্ত এক ম্যাচ। উত্তেজনার সব রসদই যেন জমিয়ে রেখেছিল। শেষ ওভার পর্যন্তও বলা যাচ্ছিল না কোন দল জিতবে। বরং বাংলাদেশ হারতে পারে, এমন সম্ভাবনা ছিল। ৬ বলে দরকার ১২ রান। স্বীকৃত ব্যাটসম্যান বলতে কেবল মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ। এরই মধ্যে অদ্ভূত এক কারণ নিয়ে ম্যাচে চরম উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়লো মোস্তাফিজ রানআউট হবার পর।

মোস্তাফিজ ননস্ট্রাইকে আউট হয়েছেন। শেষ ওভারের দ্বিতীয় বলে। সেই হিসেবে মাহমুদউল্লাহরই স্ট্রাইকিং এন্ডে যাওয়ার কথা। কিন্তু আম্পায়াররা বোধ হয় নতুন ব্যাটসম্যানকে স্ট্রাইকিং এন্ডে যাওয়ার কথা বলছিলেন। এমন পরিস্থিতিতে যেটা কোনোভাবেই মেনে নিতে পারেনি টাইগাররা।

পরিস্থিতি এতটাই ঘোলাটে হয়ে গিয়েছিল যে, অধিনায়ক সাকিব আল হাসান মাঠ ছেড়ে চলে আসতে বলেছিলেন মাহমুদউল্লাহ আর নতুন ব্যাটসম্যান রুবেল হোসেনকে। তারা বের হবারও প্রস্তুতিও নিচ্ছিলেন। এমন অবিচার কি করে মানা সম্ভব!

তবে সেই সময়টায় বেরিয়ে গেলে বাংলাদেশ ‘ডিসকোয়ালিফাইড’ হতো, ওয়াকওভার নিয়ে ফাইনালে চলে যেতো শ্রীলঙ্কা। শেষ ৪ বলে বাংলাদেশ ১২ রান নিতে পারবে না বলেই যুদ্ধের ময়দান থেকে পলায়ন করেছে টাইগাররা, এমন সমালোচনাও হয়তো হতো।

এমন পরিস্থিতিতে মাঠের কিনারে চলে আসেন দলের ম্যানেজার খালেদ মাহমুদ সুজন। সঙ্গে বাংলাদেশ ড্রেসিংরুমের সবাই। সুজন বুঝিয়ে শুনিয়ে মাহমুদউল্লাহদের ম্যাচটা শেষ করে আসতে বলেন। শেষ গল্পটা তো সবারই জানা। এমন এক ম্যাচ মাহমুদউল্লাহর অবিশ্বাস্য ব্যাটিংয়ে জিতেই ফাইনালে উঠে গেছে টাইগাররা।