সাকিবের আবেগময় খোলা চিঠি

গুঞ্জন সত্য হলো। বিশ্রামে যাবেন সাকিব, তাই বিসিবির প্রতি আবেদনও করেছিলেন। তবে অবশেষে বিসিবি তার সেই ডাকে সাড়া দিয়েছে। দক্ষিণ আফ্রিকা সফরে দুই টেস্টের সিরিজে বিশ্রাম দেয়া হয়েছে তাকে। তবে তিনি চাইলে দ্বিতীয় টেস্টে খেলতে পারবেন। সোমবার (১১ সেপ্টেম্বর) মিরপুরে এক সংবাদ সম্মেলনে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন বিসিবির ক্রিকেট পরিচালনা বিভাগের প্রধান আকরাম খান।

আগের দিন ছয় মাসের জন্য টেস্ট থেকে বিশ্রাম চেয়ে বিসিবির কাছে আবেদন করেছিলেন সাকিব। সেক্ষেত্রে দক্ষিণ আফ্রিকায় দুই টেস্টের পর ডিসেম্বরে ঘরের মাঠে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে দুই টেস্টেও পাওয়া যেত না তাকে।

টেস্ট থেকে সাময়িক বিশ্রাম চাওয়া সাকিব আল হাসান নিজের সিদ্ধান্ত নিয়ে এবার মুখ খুলেছেন। ফর্মের তুঙ্গে থাকতে সাকিব হুট করে কেন টেস্ট থেকে বিশ্রাম চাইলেন এই নিয়ে দেশজুড়ে তুমুল আলোচনার মধ্যে এবার নিজেই ব্যাখ্যা করলেন তার অবস্থান। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে তার ভেরিফাইড পাতায় সমর্থকদের উদ্দেশ্যে লিখেছেন খোলা চিঠি।

‘প্রিয় ফ্যান,
আপনারা জানেন আমি গত কয়েক বছর ধরে দেশের গৌরবের জন্য বিরতিহীন ক্রিকেট খেলে যাচ্ছি , যার কারণে আমার অনেক শারীরিক ও মানসিক ধকল যাচ্ছে। এই ব্যাপারটি মাথায় রেখে আমি ঠিক করেছিলাম আসন্ন দক্ষিণ আফ্রিকার টেস্ট সিরিজের দুটি টেস্টে সামিয়িক বিরতি নেওয়ার এবং বিসিবি বিষয়টি তাদের বিজ্ঞ বিবেচনায় নিয়ে আমাকে খেলা থেকে বিরতি নেওয়ার অনুমতি দিয়েছে।
ফলে, আমি মনে করি সাময়িক এই বিরতি আমাকে আগামী খেলাগুলোর জন্য আরো শক্তি ও মনোবল যোগাবে এবং আমাকে ও পুরো দলকে সাহায্য করবে আগামীতে আমাদের সাফল্যের চূড়ায় নিয়ে যেতে।
আমি সবাইকে ধন্যবাদ জানাতে চাই তাদের সীমাহীন ভালোবাসা ও অনুপ্রেরণার দেওয়ার জন্য। আসুন সবাই আমাদের টাইগারদের সাফল্য কামনা করি সামনের দক্ষিণ আফ্রিকার টেস্ট সিরিজের জন্য’
গেল রোববার টেস্ট থেকে ছয় মাসের বিশ্রাম চেয়ে বিসিবির কাছে আবেদন করেন সাকিব আল হাসান। তবে বিসিবি কেবল দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে দুই টেস্টের জন্য সাকিবকে বিশ্রাম দিয়েছে।
চলতি বছর টেস্টে সাকিব ছিলেন ফর্মের তুঙ্গে। ৭ টেস্টে ব্যাট হাতে ৬৬৫ রানের পাশাপাশি বল হাতে নিয়েছেন ২৯ উইকেট। এই বছর আরো চার টেস্ট খেলবে বাংলাদেশ। এক পঞ্জিকাবর্ষে ১ হাজার রান ও ৫০ উইকেট নেওয়ার অনন্য রেকর্ড গড়ার সুযোগ ছিলো বিশ্ব র‍্যাঙ্কিংয়ে এক নম্বরে থাকা এই অল রাউন্ডারের।